যৌনকর্মীদের পুনর্বাসন কেন নয় : হাইকোর্ট

দেশের পতিতালয়গুলো বন্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিষ্ক্রিয়তাকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে যৌনকর্মীদের পুনর্বাসনের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র সচিব, সমাজকল্যাণ সচিব ও পুলিশের মহাপরিদর্শককে (আইজিপি) উক্ত রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বুধবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ওমর শরীফ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যার্টনি জেনারেল মো. মোখলেসুর রহমান।

পরে অ্যাডভোকেট ওমর শরীফ জানান, দেশের সকল পতিতালয় বন্ধ করার জন্য এবং যৌনকর্মীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য হাইকোর্টের নির্দেশনা রয়েছে। তারপরও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অনেক পতিতালয় রয়েছে। সেখানে কাজের কথা বলে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে তরুণী, বিধবাদের পাচার করছে। তাই পতিতালয় উচ্ছেদ এবং যৌনকর্মীদের পুনর্বাসনের নির্দেশনা চেয়ে আইনজীবী সোহেল ইসলাম খান এবং শফিকুল কাজল রিট করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন আদালত।

চলতি বছরের ২৩ জুন একটি জাতীয় দৈনিকে ‘কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির চেষ্টা, স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার’ এবং ৫ জানুয়ারি অপর একটি জাতীয় দৈনিকে ‘চাকরির কথা বলে দুই কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রি, অতঃপর…’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। রিটে এসব প্রতিবেদন সংযুক্ত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + one =