স্কটল্যান্ডকে উড়িয়ে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের মেয়েরা

গ্রুপপর্বের তিন ম্যাচেই বাংলাদেশ বড় জয় পেয়েছিল পরে ব্যাট করে। এবার টস হারায় আগে ব্যাট করতে নামতে হলো। তবে জয়ের ধারা ধরে রাখল ঠিকই। মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে স্কটল্যান্ডকে ৪৯ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

এই জয়ে বাছাইপর্বের ফাইনালে ওঠার পাশাপাশি আগামী নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলাও নিশ্চিত করল বাংলাদেশের মেয়েরা।

আট দলের বাছাইপর্বের দুই ফাইনালিস্ট পেত মূলপর্বের টিকিট। প্রথম সেমিফাইনালে পাপুয়া নিউগিনিকে ২৭ রানে হারিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে মূলপর্বের টিকিট পেয়েছে আয়ারল্যান্ডও। শনিবার ফাইনালে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ডের মেয়েরা।

অ্যামস্টেলভিনে বৃহস্পতিবার আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১২৫ রান করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে ৭ উইকেটে ৭৬ রানের বেশি করতে পারেনি স্কটল্যান্ড।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন শামিমা সুলতানা ও আয়েশা রহমান। দুজন ৩৫ বলে গড়েন ৫১ রানের উদ্বোধনী জুটি। কিন্তু এরপরই ধস নামে বাংলাদেশের ইনিংসে। ১১ রানের মধ্যে হারায় ৪ উইকেট!

শামিমা ১৬ বলে ৩ চারে করেন ২২। আয়েশা ২৭ বলে একটি চারে ২০। ফারজানা হক ও রুমানা আহমেদের কেউই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি।

এরপর দলকে ৮৯ পর্যন্ত টানেন আগের ম্যাচে বল হাতে হ্যাটট্রিক করা ফাহিমা খাতুন ও নিগার সুলতানা। ফাহিমা ১৬ বলে ১৫ রান করে ফিরলে ভাঙে জুটি।

ষষ্ঠ উইকেটে নিগার ও সানজিদা সুলতানা গড়েন ৩২ রানের জুটি। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে সানজিদা ১৮ বলে করেন ১৯। আর নিগার ৩৬ বলে ২ চারে ইনিংস সর্বোচ্চ ৩১ রানে অপরাজিত ছিলেন।

বোলিংয়ে এদিনও বাংলাদেশের শুরুটা হয় ভালো। ৮ রানেই রাচেল স্ককেলসকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন অধিনায়ক সালমা খাতুন।

অবশ্য দ্বিতীয় উইকেটে ৪৩ রানের জুটি গড়েছিলেন দুই বোন ক্যাথরিন ব্রাইস ও সারাহ ব্রাইস। সারাহকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন ফাহিমা। ৩১ রান করা সারাহ ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে এসে শামিমার হাতে স্টাম্পড হয়েছেন।

এরপর আর পেরে ওঠেনি স্কটল্যান্ড। নাহিদা ও রুমানার দ্বিমুখী আক্রমণে দিশেহারা হয়ে যায় তারা। নাহিদা দুই বলে দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন। রুমানা ৪ ওভারে ১০ রানে ২ উইকেট, নাহিদা ৪ ওভারে ১৬ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + four =