ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

সাতক্ষীরায় ধর্ষণের দায়ে সুকুমার মৃধা নামে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হোসনে আরা আক্তার এই আদেশ দেন। সাজাপ্রাপ্ত সুকুমার মৃধা শ্যামনগর উপজেলার মুন্সীগঞ্জ ইউনিয়নের কুলতলী গ্রামের কমল মৃধার ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কুলতলী গ্রামের সুকুমার মৃধা একই গ্রামের এক ব্যক্তির ঘরে প্রবেশ করে দেব-দেবীর শপথ নিয়ে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই বাড়ির কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণ করে। পর দিন সুকুমার মৃধা একটি মন্দিরে নিয়ে ওই মেয়েকে ভুয়া বিয়ে করে। এরই মধ্যে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে মেয়েটি। কিন্তু পরে বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করে সুকুমার মৃধা। মেয়েটি একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেয়। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি মীমাংসা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও তা করেননি। উপায়ান্ত না পেয়ে মেয়েটি ২০০৩ সালের ২০ জুন সুকুমার মৃধা, তার বাবা কমল মৃধা ও মা করুনা মৃধার নামে থানায় মামলা করতে যান, কিন্তু ব্যর্থ হয়ে আদালতে মামলা করেন। পরে মামলা থেকে কমল মৃধা ও করুনা মৃধার নাম বাদ দেওয়া হয়।

এ মামলায় আদালত পাঁচজনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও নথি পর্যালোচনা করে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সুকুমার মৃধাকে কারাদণ্ড দেন।

সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি জহুরুল হায়দার বাবু বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আসামি পলাতক রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 + 6 =