রমজানে পৌনে ৭ লাখ কুরআন বিতরণ করবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন

রমজানে শিশুদের মধ্যে বিনামূল্যে ৬ লাখ ৭৩ হাজার পবিত্র কুরআন শরিফ বিতরণ করবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা)।

সোমবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের আওতায় ৬৭ হাজার ৩৬৮টি কেন্দ্রের প্রতিটিতে ১০টি করে ৬ লাখ ৭৩ হাজার ৩৬৮টি পবিত্র কুরআন শরিফ বিনামূল্যে শিশুদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।

পবিত্র রমজান যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে উদযাপনের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন সারা দেশে মাসব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য ১৬ মে সকাল ১০টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেট থেকে র‌্যালি শুরু হবে। ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজালের নেতৃত্বে এ র‌্যালি বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেট থেকে শুরু হয়ে প্রেসক্লাব, সচিবালয় ও জিপিও হয়ে দক্ষিণ গেটে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হবে। এছাড়া সব বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে এরকম র‌্যালি ও সমাবেশ হবে।

ইসলামী বইমেলা :
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের দক্ষিণ চত্বরে পয়লা রমজান থেকে মাসব্যাপী ইসলামি বইমেলা হবে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে।

এছাড়া রমজানে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের দক্ষিণ সাহানে মাসব্যাপী হালাল পণ্য বিক্রয় ও প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রদর্শনী প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর সাহানে ইসলামী ক্যালিগ্রাফি, পুস্তক ও নবী করিম (সা.) এর জীবনীভিত্তিক পোস্টার প্রদর্শনী হবে। প্রতিদিন বাদ জোহর থেকে মাগরিব নামাজের পূর্ব পর্যন্ত প্রদর্শনী দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

রমজানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আগারগাঁওয়ের প্রধান কার্যালয়, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ এবং ৬৪ বিভাগীয় বা জেলা কার্যালয়ের বিক্রয় কেন্দ্রে বিশেষ কমিশনে পুস্তক বিক্রি করা হবে। ২০১০ সালের আগে প্রকাশিত বইয়ের ওপর ৫০ শতাংশ এবং ২০১১ সালের পরে প্রকাশিত বইয়ের ওপর ৩৫ শতাংশ কমিশন দেওয়া হবে।

প্রতিদিন ৪ হাজার মুসল্লির জন্য ইফতার :
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পূর্ব সাহানে প্রতিদিন প্রায় ৪ হাজার রোজাদার মুসল্লিদের জন্য ইফতারের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

রমজানে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে প্রতিদিন বাদ জোহর তাফসিরুল কুরআন মাহফিল হবে। এছাড়া প্রতিদিন তারাবিহ নামাজে পঠিতব্য আয়াতের ওপর তারাবিহ নামাজের পূর্বে আলোচনা করা হবে।

এছাড়া পবিত্র রমজান মাসে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পূর্ব সাহানে প্রতিদিন বাদ আসর থেকে খতমে বোখারি (দরসে হাদীস) ও রমজনের মাসয়ালা-মাসায়েল সম্পর্কে আলোচনা হবে।

বায়তুল মোকাররম মসজিদে ২০ রমজান দিবাগত রাত থেকে ২৬ রমজান দিবাগত রাত পর্যন্ত প্রতিদিন রাত ১২টা থেকে ৩টার মধ্যে ৭ দিনব্যাপী কিয়ামুল লাইল নামাজে তিলাওয়াতের মাধ্যমে পবিত্র কুরআন শরিফ এক খতম সম্পন্ন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 3 =