হায়দরাবাদের জয়ে দ্যুতি ছড়ালেন সাকিব

বল হাতে দ্যুতি ছড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অল্প রানে আটকে রাখে রাজস্থান রয়্যালসকে। সহজ লক্ষ্য সহজেই ছুঁয়ে জয়ে আইপিএলের যাত্রা শুরু করেছে হায়দরাবাদ।

ঘরের মাঠে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় হায়দরাবাদ। আইপিএলে ফিরে আসা রাজস্থান রয়্যালস ৯ উইকেটে ১২৫ রানের বেশি করতে পারেনি। জবাবে ২৫ বল আগে ৯ উইকেট হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় আইপিএলের নবম আসরের চ্যাম্পিয়নরা।

ব্যাটিংয়ে সুযোগ না পাওয়া সাকিব বল হাতে ছিলেন উজ্জ্বল। ৪ ওভারে ২৩ রান খরচ করে নেন ২ উইকেট। তার বোলিংয়ে ডট বল ছিল ৯টি। প্রথম তিন ওভারে উইকেটশূন্য ছিলেন সাকিব। নিজের শেষ ওভারে ফিরেন ১৪তম ওভারে। জোড়া উইকেট অর্জন করেন সেই ওভারে। চার বলে নেন দুই উইকেট।

আর্ম বলে তুলে মারতে গিয়ে ১৫ বলে ১৭ রান করা রাহুল ত্রিপাঠী ক্যাচ দেন মন্ডিশ পান্ডের হাতে। পঞ্চম বলে রাজস্থানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৯ রান করা সঞ্জু স্যামসনকে আউট করেন সাকিব। ওই সময়ে তাকে ফেরানোর খুব দরকার ছিল হায়দরাবাদের। উইকেট নিয়ে দলকে এগিয়ে নেন সাকিব। ফিল্ডিংয়ে দারুণ ক্যাচ ধরেন রশিদ খান।

সাকিব বাদে ২টি উইকেট নেন সিদ্ধার্থ কউল। ১টি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার, স্ট্যানলেক ও রশিদ খান।

১২৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভারেই ক্যাচ তুলে দেন শেখর ধাওয়ান। কিন্তু স্লিপে ক্যাচ ছাড়েন রাজস্থানের অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে। দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসে উনদাকাত আউট করেন ঝৃদ্ধিমান সাহাকে। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি হায়দরাবাদকে। ধাওয়ান ৭৭ ও কেন উইলিয়ামসন ৩৬ রান করে দলকে দেন জয়ের স্বাদ। তাদের জুটিতে আসে ১২১ রান।

৫৭ বলে ১৩ চার ও ১ ছক্কায় ৭৭ রান করে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন ধাওয়ান।

কলকাতায় সাত বছর খেলেছেন সাকিব। হায়দরাবাদে আজই অভিষেক হলো তার। বল হাতে অবদান রেখে হায়দরাবাদের অভিষেকেও উজ্জ্বল সাকিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 1 =