জাতীয় নির্বাচন একদিনে হবে : ইসি সচিব

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন একদিনে হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

তিনি বলেন, ‘আরপিও (নির্বাচন পরিচালনা আইন) অনুযায়ী নির্বাচন একদিনেই অনুষ্ঠিত হবে।’

রোববার বিকেলে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ১০ আঞ্চলিক ও ৬৪ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করে কমিশন। বৈঠক শেষে নির্বাচন কমিশন সচিব (ইসি) সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন ইসি সচিব।

প্রসঙ্গত, শনিবার টাঙ্গাইলে এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে সারা দেশে কয়েক ধাপে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আয়োজন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।’

এ নিয়ে ইসির কোনো পরিকল্পনা আছে কি না, জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিব বলেন, ‘আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে আরপিও অনুসারে একদিনেই নির্বাচন হবে।’

সচিব বলেছেন, ‘আমি শুনেছি এ ধরনের পরিকল্পনা কমিশনের আপাতত নেই। একদিনেই ভোট হবে। আমাদের কাছে সরকার থেকে কোনো ম্যাসেজ আসেনি। এ পর্যন্ত আমাদের একদিনের পরিকল্পনাই আছে। আরপিওতে আছে জাতীয় সংসদ নির্বাচন একদিনেই করতে হবে। ধাপে ধাপে ভোট করতে হলে আরপিও পরিবর্তন করতে হবে।’

ইভিএমের ব্যাপারে সচিব বলেন, ‘ইভিএমের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যবহার করা হবে কি না, সে বিষয়ে আলোচনা হয়নি। সামনের স্থানীয় সরকার নির্বাচন ও সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে নির্বাচন কমিশনের আগ্রহ আছে। আমরা ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের অভিহিত করছি।’

নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের যাচাই-বাছাই কমিটির অগ্রগতি কেমন জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, ‘বর্তমানে ৪০টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল আছে। তাদের কাছ থেকে আমরা কিছু প্রতিবেদন পেয়েছিলাম। আমাদের কাছে অনেকে প্রতিবেদন দিয়েছে। নতুনভাবে রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের ব্যাপারে আমরা আবেদন চেয়েছিলাম। ইতোমধ্যে শতাধিক দল নিবন্ধন পেতে আবেদন করেছে। আগামীকাল সোমবার নির্বাচন কমিশন সভা আছে, সেখানে বিষয়গুলো স্থাপন করা হবে। হয়ত কালকে এ বিষয়ে জানাতে পারব।’

সচিব বলেন, ‘আজকে জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের সারা বাংলাদেশে যে ভোটকেন্দ্র আছে সেগুলো পরিদর্শন করে আমাদের কাছে প্রতিবেদন দিতে বলেছি। সেখানে কোনো সমস্যা আছে কি না, সরেজমিনে তাদের দেখতে বলেছে কমিশন। এটা ছিল সকালে আলোচনা। আর বিকেলের আলোচনা ছিল- আগামী ২৯ তারিখ বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় পৌরসভা নির্বাচনসহ বিভিন্ন নির্বাচন হবে। সেগুলো যেন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় সে ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ‘প্রতিবেদন দেওয়ার সুনির্দিষ্ট কোনো তারিখ দেইনি আমরা। ভোটকেন্দ্রের ব্যাপারে আমরা বলেছি। সুবিধাজনক জায়গায় ভোটকেন্দ্র করার ব্যাপারে মতামত জানতে চেয়েছি। নতুন ভোটকেন্দ্র করতে নতুন নীতিমালা করার পরামর্শ দিয়েছে তারা।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × two =