নিবন্ধনে সময় বাড়ল, এখনো বাকি ৮৪ হাজার হজযাত্রী

পাসপোর্ট জটিলতাসহ নানা কারণে এখনো ৮৪ হাজার বেসরকারি হজযাত্রী নিবন্ধন করতে পারেননি। রোববার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ৪৩ হাজার হজযাত্রী নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন। অথচ বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এবার হজে যাবেন ১ লাখ ২০ হাজার হজযাত্রী।

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় সব হজযাত্রীকে প্যাকেজ অনুযায়ী সব টাকা হজ এজেন্সির ব্যাংকে জমা দিয়ে রোববারের মধ্যে নিবন্ধন করতে সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু ৮৪ হাজার হজযাত্রী নিবন্ধনই করতে পারেননি। তাদের মধ্যে অধিকাংশ পাননি পাসপোর্ট। সব মিলিয়ে হজযাত্রীর নিবন্ধন নিয়ে বিপাকে পড়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়। হজযাত্রীদের সুবিধার্থে শেষ পর্যন্ত নিবন্ধনের সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় অধিকাংশ হজযাত্রী নিবন্ধন করতে না পারায় উদ্বেগ প্রকাশ করে হজযাত্রীদের নিবন্ধনের সময় বাড়াতে উদ্যোগ নেয় হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন (হাব)। তারা ধর্ম মন্ত্রণালয়ে সময় বাড়ানোর আবেদন করে। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে হজযাত্রীদের সুবিধার্থে বেসরকারি হজযাত্রীদের নিবন্ধনের সময় চার দিন বাড়ানো হয়েছে। আগামী ২২ মার্চ পর্যন্ত হজযাত্রীরা নিবন্ধন করতে পারবেন। এই সময়ের মধ্যেই হজযাত্রীদের পাসপোর্টসহ অন্যান্য জটিলতা নিরসন করতে হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব (হজ) এস এম মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্ততে রোববার জানানো হয়, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ৫ মার্চ তারিখের স্মারকে বেসরকারি হজযাত্রীদের নিবন্ধনের মেয়াদ রোববার তথা ১৮ মার্চ পর্যন্ত নির্ধারিত ছিল, এই মেয়াদ ২২ মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করা হলো।

জানা যায়, ১ মার্চ থেকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং ৬ মার্চ থেকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের নিবন্ধন শুরু হয়। রোববার ছিল নিবন্ধনের শেষ দিন। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে রোববার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধন করেন ৫ হাজার ৬৬০ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধন করেন ৩৭ হাজার ২৫০ জন। মোট নিবন্ধন করেন প্রায় ৪৩ হাজার জন। ফলে এখনো প্রায় ৮৪ হাজার হজযাত্রী নিবন্ধন করতে পারেননি।

এ বছর মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ১ লাখ ২০ হাজার জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − eleven =