‘উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে মার্কিন কৌশল কাজ করছে’

উত্তর কোরিয়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি হওয়ায় প্রমাণ হয় যে, কিম সরকারকে বিচ্ছিন্ন করার মার্কিন কৌশল কাজ করছে।

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স শুক্রবার এক বিবৃতিতে একথা উল্লেখ করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়াকে কোনো ছাড় দেয়নি এবং পরমাণু কর্মসূচী বন্ধ না করা পর্যন্ত সে দেশের ওপর মার্কিন চাপ অব্যাহত থাকবে।

পেন্স বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের ওপর যুক্তরাষ্ট্র ক্রমাগত চাপ বাড়িয়েছে এবং পরমাণু কর্মসূচি বন্ধে সুনির্দিষ্ট ও স্থায়ী পদক্ষেপ না নেওয়া পর্যন্ত দেশটির ওপর সর্বোচ্চ চাপ অব্যাহত থাকবে।

এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার আলোচনায় বসতে সম্মতি হওয়ার বিষয়টিকে বিশাল উন্নতি বলে উল্লেখ করে প্রশংসা করলেও নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে বলে জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে বিরত রাখতে ২০০৬ সাল থেকে জাতিসংঘের ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদ উত্তর কোরিয়ার ওপর বিভিন্ন ধরনের অবরোধ আরোপ করে আসছে ।

সর্বশেষ গত বছরের ডিসেম্বরে নতুন করে অবরোধ আরোপ করলে দেশটির তেল আমদানি ৯০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। কিন্তু ওই অবরোধের পরও বেশ কয়েকটি দূর পাল্লার মিসাইলের সফল পরীক্ষার দাবি করে উত্তর কোরিয়া।

এদিকে দীর্ঘদিনের নিরবতা ভেঙে উত্তর কোরিয়া গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ায় শীতকালীন অলিম্পিকে অংশ নেওয়ার আগ্রহ দেখালে দেশটির সঙ্গে আলোচনার পথ উন্মুক্ত হয়। সে ধারাবাহিকতায় এই সপ্তাহের শুরুর দিকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিরা পিয়ংইয়ংয়ে কিমের সঙ্গে এক অভূতপূর্ব বৈঠকে মিলিত হন।

ওই বৈঠকের পর উত্তর কোরিয়ার নেতার বার্তা পৌঁছে দিতে ওয়াশিংটনে ছুটে যান দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিরা। সেখানে তারা কিম জং উনের সাক্ষাতের আমন্ত্রণ হস্তান্তর করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এবং ট্রাম্প সে আমন্ত্রণ গ্রহণ করার কথা জানিয়েছেন। আগামী মে মাসে দুই নেতার এক অভূতপূর্ব সম্মেলনে যোগ দেওয়ার কথা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 3 =