এক টেস্টে জানা যাবে ৮টি ক্যানসারের লক্ষণ

মানবদেহে ক্যানসারের আক্রমণ বাড়ছে।আশার কথা হলো, গবেষকরা একটি মাত্র রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে ৮টি ভিন্ন ধরনের ক্যানসার শনাক্ত করার উপায় উদ্ভাবন করেছেন। নিঃসন্দেহে এটি মানব জাতির জন্য আশীর্বাদ। গবেষকরা বলছেন, নতুন এই রক্ত পরীক্ষায় ব্রেস্ট, ওভারিয়ান, লিভার, স্টমাক, প্যানক্রিয়াস, ইসোফাগাস, বাওয়েল ও লাং ক্যানসারের মতো আটটি ক্যানসারের পূর্ব লক্ষণ জানা যাবে। নতুন এই ব্লাড টেস্টের নাম ‘ক্যানসার সিক’। ক্যানসার আক্রান্ত হতে পারে এমন ১৬টি ভিন্ন ধরনের জিন এই পরীক্ষায় পর্যবেক্ষণ করা হবে। টেস্টটি করাতে ৫০০ ডলার খরচ পড়বে।

অস্ট্রেলিয়ার দুই গবেষক প্রফেসর পিটার গিবস ও অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর জিন টাই এই গবেষণার সাথে জড়িত। তবে আমেরিকার জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিনের গবেষক জশুয়া কোহেন মূল গবেষক। তিনি বলেছেন, যেভাবে কোলেস্টেরলের মাত্রা পরীক্ষার তাগিদ অনুভব করে মানুষ, তেমনি শরীরে ক্যানসার আছে কি না, তা আগেই জানা যাবে রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে। বর্তমানে ওভারিয়ান, স্টমাক, ইসোফেজিয়াল, লিভার ও প্যানক্রিয়াটিক ক্যানসারের টেস্ট করানোর সুযোগ পাচ্ছেন না রোগীরা। এই রক্ত পরীক্ষায় সেসব ক্যানসারের লক্ষণ শনাক্ত করা যাবে।

এই রক্ত পরীক্ষায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স অ্যালগোরিদমের মাধ্যমে রক্তে কোন ধরনের জিন ও প্রোটিন ঐ রোগী বহন করছেন, তা শনাক্ত করা হয় বলে জানান কোহেন। রক্ত পরীক্ষা কতোটা সঠিক তা জানতে ১ হাজার ক্যানসার আক্রান্ত রোগীর উপর গবেষণা চালানো হয়। ক্যানসার শনাক্তের ক্ষেত্রে এই রক্ত পরীক্ষা ৬৯ থেকে ৯৮ শতাংশ সফল হয়েছে। আর ব্লাড টেস্টের পর প্রাথমিক স্টেজে আক্রান্ত ক্যানসার রোগীরা যাতে সঠিক চিকিৎসা নিতে পারেন, সে বিষয়ে আরো ব্যাপক গবেষণা করতে যাচ্ছেন প্রফেসর কোহেন। সে লক্ষ্যে আগামী ৫ বছর ৫০ হাজার নারী, যাদের ক্যানসার নেই, তাদের উপর ‘ক্যানসার সিক’ ব্লাড টেস্ট চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × five =