শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের জয়ের ‘হ্যাটট্রিক’

টেন্ডাই চাতারার স্লোয়ারে পয়েন্টে ক্যাচ তুলে দিলেন দশমন্থ চামিরা। সহজ ক্যাচ নিতে কোনো ভুল হলো না দ্বাদশ ফিল্ডার ব্রেন্ডন মাভুতার। এরপরই উল্লাসে ফেটে পড়লেন জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা। ড্রেসিং রুম থেকে ছুটে এসে তাদের সঙ্গে যোগ দিলেন আরো কয়েকজন। এমন উদযাপন তো হবেই। জিম্বাবুয়ে যে ত্রিদেশীয় সিরিজে হারিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে!

অথচ আগের ম্যাচেই বাংলাদেশের কাছে স্রেফ উড়ে গিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। ১৭০ রানে অলআউট হয়ে ম্যাচ হেরেছিল ৮ উইকেটে। সেই জিম্বাবুয়ে আজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৯০ রান করে ম্যাচ জিতল ১২ রানে।

বেশি দিন আগের কথা নয়। মাস ছয়েক আগে শ্রীলঙ্কার মাটিতে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১-এ পিছিয়ে পড়েও ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল জিম্বাবুয়ে। সেখানে শেষ দুই ম্যাচে জিতেছিল জিম্বাবুয়ে। এরপর দুই দলের আবার দেখা হলো আজই। মানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের হ্যাটট্রিক করল জিম্বাবুয়ে।

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের এটিই ছিল আবার শততম ওয়ানডে ম্যাচ। এই উপলক্ষে বিসিবির ছিল না তেমন কোনো উদ্যোগ। মিরপুরের গ্যালারিতেও দর্শক ছিল হাতে গোনা। তবে ম্যাচটা হলো বেশ উত্তেজনাপূর্ণই।

শ্রীলঙ্কার কোচ হিসেবে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের প্রথম ম্যাচ ছিল এটিই। ফের নেতৃত্ব পাওয়ার পর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের প্রথম ম্যাচও। হার দিয়ে যাত্রা শুরু হলো কোচ আর অধিনায়কের।

লক্ষ্য তাড়ায় শ্রীলঙ্কাকে উড়ন্ত সূচনা এনে দিয়েছিলেন দুই ওপেনার কুশল পেরেরা ও উপুল থারাঙ্গা। ৩৪ বলে ৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন এই দুজন। কিন্তু এরপরই জোড়া ধাক্কা খায় শ্রীলঙ্কা। ১ রানের ব্যবধানে ফিরে যান থারাঙ্গা ও কুশল মেন্ডিস। থারাঙ্গা ১৭ বলে করেছেন ১১, তিনে নামা মেন্ডিস মেরেছেন ডাক।

তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক ম্যাথুসের সঙ্গে ৮৫ রানের বড় জুটি গড়ে ধাক্কা সামাল দেন ওপেনার পেরেরা। সেঞ্চুরির দিকে এগিয়ে যাওয়া পেরেরাকে থামান সিকান্দার রাজা। সুইপ করতে গিয়ে টপ এজ হয়ে শর্ট ফাইন লেগে ব্লেসিং মুজারাবানির হাতে ধরা পড়েন পেরেরা। ৮৩ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ৮০ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

দলের ১৫৭ রানে ম্যাথুস ৩৪ রান করে ফেরেন রাজার দুর্দান্ত এক ক্যাচে। দলের স্কোর দুই শতে যাওয়ার আগেই দিনেশ চান্দিমাল (৩৪) ও গুনারত্নে ফিরে গেলে চাপে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। চান্দিমালকে বোল্ড করেন কাইল জার্ভিস, টেলরের হাতে স্টাম্পড হয়েছেন গুনারত্নে।

দলের ২২৪ রানে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরে গেলে আরো চাপে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। তবে ভরসা হয়ে টিকে ছিলেন আগের সিরিজে নেতৃত্ব হারানো থিসারা পেরেরা। তিনি আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে এগিয়ে নেন দলকে।

শেষ ১০ ওভারে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল ৫৬ রান। ৪৫তম ওভারে শেষ বলে চাতারার স্লোয়ারে আকিলা ধনঞ্জয়া ফিরে গেলে আবার ম্যাচ হেলে যায় জিম্বাবুয়ের দিকে।

শেষ চার ওভারে ২ উইকেট হাতে রেখে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন পড়ে ২৪ রান। ৪৭তম ওভারের প্রথম বলে চাতারাকে ছক্কা হাঁকিয়ে ব্যবধান কমিয়ে আনেন পেরেরা। চতুর্থ বলটা চাতারা দিয়েছিলেন ফুলটস, সেই বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে টাইমিংয়ের গড়মিলে ডিপ মিড উইকেটে রাজাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন পেরেরা (৩৭ বলে ৬৪)। শ্রীলঙ্কার আশার শেষ বাতিটাও নিভে যায় সেখানেই। চামিরাকে ফিরিয়ে জয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন চাতারা।

এর আগে টস জিতে জিম্বাবুয়েকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়ের শুরুটা হয় দারুণ। দ্বিতীয় বলেই সুরঙ্গা লাকমালকে স্ট্রেইট ড্রাইভে চার হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান এক বল পর শর্ট মিড উইকেট দিয়ে চার হাঁকান আরেকটি। মাসাকাদজা ও সলোমন মিরে গড়েন ৭৫ রানের উদ্বোধনী জুটি। মিরেকে (৩৪) ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন থিসারা পেরেরা।

এরপর দ্রুতই লাকমালের বলে ম্যাথুসকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ক্রেইগ আরভিন। বাংলাদেশের বিপক্ষে ডাক মারা আরভিন আরেকবার ব্যর্থ, করেছেন ২। মাসাকাদজা তুলে নিয়েছিলেন ক্যারিয়ারের ৩২তম ওয়ানডে ফিফটি। সেঞ্চুরির দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু আসেলা গুনারত্নের অফ স্টাম্পের বাইরের একটি বলে শট খেলতে গিয়ে মিড অফে দ্বাদশ খেলোয়াড় গুনাথিলাকাকে ক্যাচ দিয়ে শেষ হয় তার ৭৩ রানের ইনিংস। ৮৩ বল ১০টি চারে তিনি ইনিংসটি সাজান।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ২৪ রান করা ব্রেন্ডন টেলর আজ আউট হয়েছেন ৩৮ রান করে। ১৬৯ রানে টেলরের বিদায়ের পর দলকে তিন শর কাছাকাছি নিয়ে যাওয়ার বড় কৃতিত্ব সিকান্দার রাজার। আগের ম্যাচে ফিফটি করা রাজা এদিন করেছেন পঞ্চাশ। পঞ্চম উইকেটে ম্যালকম ওয়ালারের সঙ্গে ৫৭ ও সপ্তম উইকেটে পিটার মুরের সঙ্গে ৬১ রানের ভালো দুটি জুটি গড়েন রাজা। ওয়ালার করেন ২৯, মুর ১৯।

তবে রাজা শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৮১ রানে। ৬৭ বলে ৮ চার ও এক ছক্কায় ইনিংসটি সাজান রাজা। শ্রীলঙ্কার গুনারত্নে ৩টি ও পেরেরা নেন ২টি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
জিম্বাবুয়ে :  ৫০ ওভারে ২৯০/৬
শ্রীলঙ্কা :  ৪৮.১ ওভারে ২৭৮
ফল : জিম্বাবুয়ে ১২ রানে জয়ী।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: সিকান্দার রাজা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − 2 =