ময়মনসিংহে ১৯৫ উন্নয়ন প্রকল্প উপহার প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আবার নৌকায় ভোট চেয়ে বলেছেন, ‘‘নিজেদের এলাকার প্রকল্পগুলো বুঝে নিন, ময়মনসিংহ বিভাগের জন্য ১৯৫টি উন্নয়ন প্রকল্প উপহার দিলাম।’’

প্রধানমন্ত্রী এ সময় ময়মনসিংহে আলাদা শিক্ষাবোর্ড, বিভাগীয় স্টেডিয়াম ও নভোথিয়েটার করার ঘোষণা দেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা মানুষ মারে, নির্যাতন করে, আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে নির্যাতন করে না, দেশের উন্নয়ন করে।

শুক্রবার বিকেলে ময়মনসিংহের ঐতিহাসিক সার্কিট হাউজ মাঠে ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তার আগে ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়নে ১৯৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকার সভাপতিত্বে, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলমের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, ধর্মমন্ত্রী আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, সংসদ সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক, ডা. দীপু মণি, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন প্রমুখ।

এ সময় নবগঠিত সিটি কর্পোরেশনের পক্ষে প্রশাসক ইকরামুল হক টিটু প্রধানমন্ত্রীকে সিটি কপোরেশনের চাবি হস্তান্তর করেন।

জাতির জনককে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার কথা স্মরণ করে বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, ‘‘মানুষ তার আপনজনের হত্যার বিচার চাইতে পারে, আমাদের সেই সুযোগও দেওয়া হয়নি। ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করতে চেয়েছিল জিয়াউর রহমান।’’

আওয়ামী লীগ সরকার প্রযুক্তিখাতে দেশকে এগিয়ে নিয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আজ বাংলাদেশ ডিজিটাল। প্রতি উপজেলায় ব্রডব্যান্ড এবং ইন্টারনেট সার্ভিস চালু করেছি। আজকে আমরা মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উপৎক্ষেপণ করে মহাকাশ জয় করেছি। আমরা যে ডিজিটাল সেন্টার করে দিয়েছি, আপনারা সেখানে বসে নিজেরা অর্থ উপার্জন করতে পারেন। নিজের দেশে বসে বিদেশে অর্থ উপার্জন করতে পারেন, সেই সুযোগ করে দিয়েছি। আজ সবার হাতে হাতে মোবাইল। এটি বিএনপির সময় ছিল না। ৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর সবার হাতে মোবাইল ফোন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে।’’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আমার চাওয়া-পাওয়ার নেই। আমি চাই কেবল বাংলার মানুষ যেন দু’বেলা পেট পুরে খেতে পারে। একটা মানুষও যেন গৃহহারা না থাকে। সেজন্য আমাদের গুচ্ছগ্রাম ও আশ্রয়ন প্রকল্প আছে।’’

প্রধানমন্ত্রী ব্রহ্মপুত্র নদের অপর পারে ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় অবস্থিত ৮টি মৌজায় প্রায় ৪ হাজার ৩৬৬ একর জমির উপর আধুনিক, পরিকল্পিত বিভাগীয় শহর ও সদর দপ্তর, ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর তিনটি নান্দনিক সেতু, দাপ্তরিক, আবাসিক, বাণিজ্যিক, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খেলাধুলা, বিনোদন ইত্যাদি ব্লক. সুপরিসর একটি প্রাকৃতিক লেক, আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার, বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটার, মিউজিয়াম, হোটেল-মোটেলসহ নান্দনিক উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রী ৪০ মিনিটের বক্তব্যের মধ্যে প্রায় ৩০ মিনিট ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়ন প্রকল্পের বর্ণনা দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + sixteen =