মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে মামলা

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা করেছেন আশির দশকের ছাত্রদল নেতা সানাউল হক নীরু।

মঙ্গলবার ঢাকা অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আমিনুল হকের আদালতে এ মামলা করেন নীরু। তবে আদালত তা সরাসরি মামলা হিসেবে না নিয়ে মতিঝিল থানার ওসিকে তদন্ত করে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মওদুদ আহমদের লিখিত ‘চলমান ইতিহাস’ বইতে বাদীকে ‘জঙ্গি ও মাস্তান’ বলে কটূক্তি করায় এ মামলা করেন সানাউল হক নীরু। মামলায় মওদুদ আহমদ ছাড়াও বইটির প্রকাশক মহিউদ্দিন আহমেদ ও মুদ্রাক্ষরিক মো. নাজমুল হককেও আসামি করা হয়েছে।

বাদীর আইনজীবী প্রদীপ দেবনাথ সাংবাদিকদের বলেন, মওদুদের লেখা ‘চলমান ইতিহাস’ বইতে সানাউল হক নীরু ও গোলাম ফারুক অভিকে ‘জঙ্গি’ ও ‘মস্তান’ আখ্যায়িত করা হয়।

‘ভুল ও মিথ্যা তথ্যা দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্তি করায় এবং ওই তথ্যের মাধ্যমে বাদীপক্ষকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করায় শত কোটি টাকার মানহানি মামলা করার আরজি জানানো হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, মওদুদ আহমদের ‘চলমান ইতিহাস’ বইতে ১৯৮৩ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সময়ে দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে আলোচনা করা হয়। বইটিতে তার ‘খণ্ডিত স্মৃতিকথা’ ও ‘খণ্ডিত বিশ্লেষণ’ প্রকাশ পায়।

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্রাক্তন যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন আশির দশকের ছাত্রনেতা সানাউল হক নীরু। ছাত্রদলের প্রথম নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মাহবুল হক বাবলুর সহোদর তিনি। দলীয় শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে ১৯৯০ সালে দল থেকে বহিষ্কৃত হন নীরু।

২০০৮ সালে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দল বিকল্পধারা বাংলাদেশে যোগ দিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নরসিংদী-০৪ (মনোহরদী-বেলাব) আসনে কুলা প্রতীক নিয়ে প্রার্থী হন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 2 =