মানহানির ২ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন বহাল

ঢাকা ও নড়াইলে দায়ের করা মানহানির দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ যে আবেদন করেছিল, সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ তা খারিজ করে দিয়েছেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন ও কায়সার কামাল।

এ বিষয়ে জয়নুল আবেদীন সংবাদিকদের বলেন, আপিল বিভাগের এই আদেশের ফলে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিনই বহাল থাকলো।

তিনি বলেন, ‘এগুলো জামিনযোগ্য মামলা। বিচারিক আদালত জামিন না দেওয়ায় আমাদের উচ্চ আদালতে আসতে হয়েছিল। হাইকোর্ট জামিনও দিয়েছিল। কিন্তু সরকার রাজনৈতিক উদ্দশ্যে খালেদা জিয়াকে আটকে রাখার জন্য তার জামিনের বিরুদ্ধে আবেদন করেছিল।’

এর আগে নড়াইলের আদালতে করা মানহানির মামলায় খালেদা জিয়াকে গত ১৩ আগস্ট ছয় মাসের জামিন দেয় হাইকোর্ট। আর ঢাকার মামলায় গত ১৪ আগস্ট ছয় মাসের জামিন পান খালেদা জিয়া।

ওই দুই আবেদনের ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করেছিল রাষ্ট্রপক্ষ। চেম্বার আদালত আবেদন দুটি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। সোমবার সেই শুনানি শেষে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন খারিজ করে দেন সর্বোচ্চ আদালত।

প্রসঙ্গত, চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজার রায়ের পর গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। ওই মামলায় তিনি জামিন পেলেও আরও কয়েকটি মামলার কারণে তার মুক্তি হচ্ছে না।

স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে ‘বির্তকিত’ মন্তব্যের অভিযোগে নড়াইল ও ঢাকায় পৃথক দুটি মানহানির মামলা হয় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে। ২০১৫ সালের ২১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের সমাবেশে বেগম খালেদা জিয়া শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন। পরে তার ওই বক্তব্য বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রচার হলে এই দুটি মামলা দায়ের হয়।

নড়াইলের আদালতে মানহানির মামলা হয় ২০১৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর। নড়াইল জেলা পরিষদের এক নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও নড়াগাতি থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রায়হান ফারুকী ইমাম এই মামলা দায়ের করেন।

আর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে (সিএমএম) ২০১৬ সালের ৫ জানুয়ারি মামলা দায়ের করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী।

নড়াইলের জেলা ও দায়রা জজ আদালত গত ৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করলে হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। আর ঢাকায় দায়ের হওয়া মামলায় গত ৭ আগস্ট জামিন নাকচ করে দেন আদালত। পরে ওই দুই মামলায় হাইকোর্ট ছয় মাসের জামিন দেন বিএনপি চেয়ারপারসনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 8 =