কোন চিনি ভালো: বাদামি না সাদা?

স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি ভেবে এখন অনেকেই সাদা চিনির চেয়ে বাদামি রঙয়ের চিনি বেছে নিচ্ছেন। সাদা ভাতের চেয়ে বাদামি ভাত, সাদা পাউরুটির চেয়ে বাদামি পাউরুটি বেশি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ বলে যে ধারণা ও বিতর্ক চলছে, তারই মতো সাদা ও বাদামি চিনির পার্থক্য নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে এখন। তুলনামূলকভাবে কম শোধন করা হয় বলে সাদা চিনির চেয়ে বাদামি চিনি দেখতে আলাদা হয়। তাই সাদা চিনির চেয়ে আসলেই কি বাদামি চিনি বেশি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ? জানি চলুন:

* ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অব এগ্রিকালচারের এক রিপোর্ট থেকে জানা যায়, এক টেবিল চামচ বাদামি চিনিতে ১৭ কিলো ক্যালরি থাকে। আর একই পরিমাণ সাদা চিনিতে থাকে ১৬ কিলো ক্যালরি।

* পুষ্টিবিদরা বলছেন, দুই ধরনের চিনির মধ্যে শুধু রঙ ও স্বাদেই পার্থক্য থাকে।

* অনেকেরই ধারণা বাদামি চিনিতে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, আয়রন ও ম্যাগনেশিয়াম বেশি থাকে। তবে পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে এসব মিনারেল বাদামি চিনিতে খুব অল্প পরিমাণে থাকে, যে কারণে সাদা চিনির চেয়ে বাদামি চিনি বেশি উপকারি না।

* পরীক্ষায় দেখা গেছে বাদামি চিনির ৯৫ শতাংশই সুক্রোজ (সাদা চিনি) ও ৫ শতাংশ মোলাসিজ বা উপরের আবরণ। এর মানে হলো সাদা চিনির মতোই এটি শরীরের জন্য ক্ষতিকর। আর তাই ডায়াবেটিক রোগী ও বেশি ওজনের মানুষদের জন্য বাদামি চিনিও একই রকম ক্ষতিকর।

* সাদা ও বাদামি কোনো ধরনের চিনিই স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি না। তাই অতিরিক্ত চিনি খাওয়ার প্রয়োজন নেই। দিনে যেসব কার্বোহাইড্রেট গ্রহণ করেন আপনি, তাতেই চিনি থাকে যা শরীরের চাহিদা মেটায়। যে পাস্তা, কোলা ও কোমল পানীয়, তাজা ফল খাচ্ছেন, সেগুলোর ভেতরই চিনি থাকে। তাই আলাদা চিনি- হোক তা বাদামি বা সাদা, তা না খাওয়াই ভালো।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 3 =